ইন্টারপোলের ওয়ান্টেড লিস্টে বঙ্গবন্ধুর ৬ খুনি

আলোকিত প্রতিবেদক : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার।

১৯৯৬ সাল থেকে পলাতক এই খুনিদের বিষয়ে কয়েকটি দেশের সরকারের কাছে চিঠিও পাঠানো হয়েছে।

সাজা এড়াতে পালিয়ে থাকা খুনিদের অনেকেই এক সময় বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসের গুরুত্বপূর্ণ পদে চাকরি করেছেন। জাতির জনকের খুনিরা জাতির প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখলের অশুভ প্রক্রিয়া শুরু হয়।

জাতির জনকের ১২ খুনির মধ্যে পাঁচজনের ফাঁসি ২০১০ সালের ২৮ জানুয়ারি কার্যকর করা হয়।

তারা হলেন সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশিদ, বজলুল হুদা, মহিউদ্দিন আহমেদ ও মুহিউদ্দিন আহমেদ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানায়, খুনিদের ফেরত আনার প্রক্রিয়া ১৯৯৬ সাল থেকে শুরু হয়। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর প্রক্রিয়া আরও জোরদার করা হয়। ওই বছর সিঙ্গাপুরে ইন্টারপোলের বার্ষিক সাধারণ সভায় খুনিদের খুঁজে বের করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

এরই মধ্যে সরকার ইন্টারপোলের মাধ্যমে রেড নোটিশ জারি করেছে। ইন্টারপোলের ‘ওয়ান্টেড লিস্টে’ তাদের নামও আছে।

সূত্র আরও জানায়, নূর চৌধুরী কানাডা ও রাশেদ চৌধুরী আমেরিকায় অবস্থান করছেন বলে সরকারের কাছে তথ্য রয়েছে। এ ছাড়া খন্দকার আবদুর রশিদ পাকিস্তান বা লিবিয়া, শরিফুল হক ডালিম পাকিস্তান, আবদুল মাজেদ সেনেগাল ও মোসলেম উদ্দিন জার্মানিতে আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আরও খবর

Contact Us