গাজীপুরে গাছ কেটে গ্রিনটেকের বন উজাড়!

আলোকিত প্রতিবেদক : গাজীপুরে গাছ কেটে ও বর্জ্য ফেলে সংরক্ষিত বন উজাড় করছে গ্রিনটেক রিসোর্ট।

জাতীয় উদ্যান রেঞ্জের বারইপাড়া বিটের পিঙ্গাইল এলাকার গজারি বনের ভেতরে এ ঘটনা ঘটছে।

দীর্ঘদিন ধরে এসব কর্মকাণ্ড চলে আসলেও স্থানীয় বন কর্মকর্তারা নীরব ভূমিকা পালন করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, গ্রিনটেক রিসোর্ট এন্ড কনভেনশন সেন্টার নামের বিনোদন স্পটটির পরিসর বেশ বড়। চারপাশেই বনভূমি। রিসোর্টের মূল গেটের সামনের পাকা রাস্তা বনের জমিতে করা হয়েছে।

গেটের উত্তর দিক দিয়ে রিসোর্টে বাসসহ যানবাহন প্রবেশের দ্বিতীয় পাকা রাস্তা। ১০ ফুট প্রস্থের ও প্রায় এক হাজার ফুট দৈর্ঘ্যের এই রাস্তাটিও বনভূমি দখল করে নির্মিত হয়েছে।

রিসোর্টের সামনের অংশ অর্থাৎ পশ্চিম পাশে বনের গাছ কমেছে। দক্ষিণ পাশে প্রাচীর ঘেঁষে ফেলা হচ্ছে বর্জ্য। ক্রমান্বয়ে মরছে গাছ।

পূর্ব পাশের অবস্থা ভয়াবহ। রিসোর্টের প্রাচীর ঘেঁষে প্রায় দেড় বিঘা বন উজাড় করা হয়েছে। চোখে পড়ল কিছু গাছের মোথা।

সেখানে বনের ভেতরে বর্জ্যের একাধিক স্তূপ। দুটি নোংরা পানির নর্দমা। ছড়াচ্ছে দুর্গন্ধ। প্রাচীর ঘেঁষে বন দিয়ে করা হয়েছে নালা। পয়োনিষ্কাশন পাইপ বসিয়ে পাঁচটি সেপটিক ট্যাংকিও বনের মধ্যে করা হয়েছে।

উত্তর পাশেও প্রাচীর ঘেঁষে বর্জ্য ফেলা হচ্ছে। কয়েক বিঘা বনভূমি পড়েছে রিসোর্টটির দুই অংশের মাঝে। বনের মধ্য দিয়েই চলাচলের রাস্তা। মাটির নিচ দিয়ে বসানো হয়েছে ক্যাবল লাইন।

এ ছাড়া ওই অংশে সীমানা প্রাচীর নেই। কমছে বনের গাছ। কপিচগুলো কেটে ফেলা হচ্ছে।

একজন বন কর্মকর্তা জানান, গ্রিনটেকের ভেতরেও বনের জমি আছে। তাদের বর্জ্যে মাটি ও পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়েছে।

হিসাব করে দেখা যায়, গ্রিনটেক চারদিক দিয়ে প্রায় তিন বিঘা বন উজাড় করেছে। পাকা রাস্তা করায় বেহাত হয়েছে আরও পৌনে এক বিঘা বনভূমি।

এ ব্যাপারে রিসোর্টের ভেতরে গিয়ে ম্যানেজার আতিকুর রহমানের সাথে কথা হয় আলোকিত নিউজ টিমের।

তিনি বলেন, আমাদের মালিকের নাম শাহজালাল। বনের মধ্যে কিছু বর্জ্য ফেলা হয়। গাছ মরতে পারে।

মালিকের মোবাইল নম্বর চাইলে ম্যানেজার বলেন, নম্বর দেওয়া নিষেধ আছে। অন্য কোথাও দেখেন।

জানতে চাইলে রেঞ্জ কর্মকর্তা আবুল হাসেম আলোকিত নিউজকে বলেন, গ্রিনটেকের ভেতরে বনের জমি অল্প আছে। তাদের বিরুদ্ধে আগের কর্মকর্তারা একাধিক মামলা দিয়েছেন।

Share
আরও খবর