গাজীপুরে কোটি টাকার বেত বাগান ফু-ওয়াং সিরামিকসের পেটে!

আলোকিত প্রতিবেদক : গাজীপুরে সংরক্ষিত বেত বাগান গিলে ফেলল শিল্প প্রতিষ্ঠান ফু-ওয়াং সিরামিকস।

রাজেন্দ্রপুর রেঞ্জের মনিপুর বিটের হোতাপাড়া এলাকায় দীর্ঘ সময় ধরে অপরাধটি সংঘটিত হল।

আর বনের ব্যাপক ক্ষতিসাধন হলেও বিট কর্মকর্তা নূর মোহাম্মদসহ সংশ্লিষ্টরা পালন করলেন নীরব ভূমিকা।

দখলের দৃষ্টি এবার গজারি বনে

সরেজমিনে জানা যায়, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পূর্ব পাশে ফু-ওয়াং সিরামিকস অবস্থিত। কারখানাটির চার দিক দিয়েই বনভূমি।

পূর্ব দিকে গজারি বনের সাথে বেত বাগান। বন উজাড় হওয়ায় বাগানটি সৃজন করে বিট অফিস।

এরপর মালিক পক্ষ ধীরে ধীরে কারখানা সম্প্রসারণ শুরু করে। বাগানের ওপর বর্জ্য ও মাটি ফেলায় মরতে থাকে গাছ।

উজাড়কৃত বাগানের একাংশ। ছবিটি গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি তোলা।

গত সপ্তাহে গিয়ে দেখা যায়, বাগানটি দখল করে নেওয়া হয়েছে। এখন গাছের বদলে সেখানে বালু ও সাদা মাটির স্তূপ। অবশিষ্ট অংশও দখল করা হচ্ছে।

প্রকাশ্য দিবালোকে চলছে দখল

এভাবে দখলকৃত ভূমির পরিমাণ প্রায় এক বিঘা। যার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় দুই কোটি টাকা।

এ ছাড়া দূষণে হুমকির মুখে পড়েছে জীববৈচিত্র্য ও পরিবেশ-প্রতিবেশ। আগে জরিমানা গুনলেও অবস্থার পরিবর্তন হয়নি।

মাটি ফেলে বাগান ভরাট। ছবিটি গত বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি তোলা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সাবেক বিট কর্মকর্তা আশরাফুল আলম দোলনের সময়ে কিছু অংশ দখল হয়। নির্মাণ করা হয় জেনারেটর রুম। বর্তমান বিট কর্মকর্তা যোগদানের পর পুরো বাগান গ্রাস করা হয়।

উজাড়কৃত অংশে বর্জ্যের স্তূপ ও জেনারেটর রুম। ছবিটি গত বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর তোলা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, ফু-ওয়াংয়ের ভেতরে আগে থেকেই এসএ ৫৯৮ নং দাগের গেজেটভুক্ত বনভূমি রয়েছে। বন কর্মকর্তাদের মোটা অঙ্কের টাকায় ম্যানেজ করে এ দখলযজ্ঞ চলছে।

এ ব্যাপারে ফু-ওয়াং সিরামিকসে যোগাযোগ করলে তাদের পক্ষে স্থানীয় সেলিম নিউজ না করার অনুরোধ করেন।

অফিসে গিয়ে বিট কর্মকর্তা নূর মোহাম্মদকে পাওয়া যায়নি। মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি কথা বলতে রাজি হননি।

বনপ্রহরী জয়নাল আলোকিত নিউজের কাছে দাবি করেন, ফু-ওয়াং সিরামিকস বাগানের কোন ক্ষতি করছে না।

ঘটনাটি রেঞ্জ কর্মকর্তা আতাউর মজিদকে জানালে তিনি বলেন, আমার মনে হয় ইদানীং করেনি। আগে হলে হতে পারে।

image_printপ্রিন্ট করুন
Share
  • 1K
    Shares
আরও খবর