কাপাসিয়ায় স্বামীর পরকীয়ার বলি দুই সন্তানের জননী

আলোকিত প্রতিবেদক : গাজীপুরের কাপাসিয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতনের পর মুখে বিষ ঢেলে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার টোক ইউনিয়নের ডুমদিয়া দক্ষিণপাড়া এলাকায় গত রবিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে জানা যায়, ওই গ্রামের রাজু মিয়ার মেয়ে তাসলিমা আক্তারকে (৩০) একই গ্রামের মৃত আবদুল মান্নানের ছেলে রফিকুল ইসলাম প্রায় ১৯ বছর আগে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে স্বর্ণা (৮) ও মারুফ (৬) নামে দুটি সন্তান রয়েছে।

গত চার বছর ধরে একই গ্রামের রহিমা খাতুনের সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন রফিকুল। তাসলিমা এর প্রতিবাদ করলে শুরু হয় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন।

এক পর্যায়ে তাসলিমা বাবার বাড়িতে গিয়ে দুই মাস থাকেন। পরে রফিকুল সালিশি বৈঠকে অপকর্ম না করার শর্তে তাসলিমাকে নিয়ে আসেন।

তাসলিমা রবিবার সন্ধ্যায় খবর পেয়ে রহিমার বাড়িতে গিয়ে রফিকুলকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পান। এ নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে তাকে মারপিট করা হয়।

নিহতের বাবা অভিযোগ করেন, তার মেয়ে রাত ১০টার দিকে মোবাইলে মারপিটের কথা জানিয়েছেন। রহিমা শাবল দিয়ে তাকে আঘাত করেছেন।

এদিকে তাসলিমাকে গুরুতর অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কাপাসিয়া থানার এসআই সুমন মিয়া বলেন, আমি প্রাথমিক তদন্তে জানতে পারি, স্বামীর পরকীয়া সহ্য করতে না পেরে তাসলিমা বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। তার শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

পরিদর্শক (তদন্ত) রাজীব কুমার দাশ জানান, তাসলিমার ভাই সহিদ মিয়া বাদী হয়ে রফিকুল, রহিমা, রফিকুলের ভাই আলামিন ও শাহজাহানকে আসামি করে মামলা করেছেন। রফিকুলকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

image_printপ্রিন্ট করুন
Share
  • 173
    Shares
আরও খবর