নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে বিজিবি ও কোস্টগার্ডকে সতর্ক থাকার নির্দেশ

আলোকিত প্রতিবেদক : বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমারের গোলাগুলির ঘটনায় বিজিবি ও কোস্টগার্ডকে সজাগ থাকতে বলা হয়েছে। এ মুহূর্তে সেনা মোতায়েন নিয়ে কিছু ভাবছে না সরকার।

রবিবার মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব এবং উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক শেষে ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব খুরশেদ আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, আমরা মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদলিপি দিয়েছি। সীমান্তে যেসব ঘটনা ঘটেছে, সেগুলোর যেন পুনরাবৃত্তি না হয়। মিয়ানমারের গোলা যেন আমাদের ভূখণ্ডে না আসে।

বাংলাদেশ একটি দায়িত্বশীল শান্তিকামী রাষ্ট্র। আমরা ধৈর্যের সঙ্গে অনেক দিন ধরে এসব সহ্য করে যাচ্ছি। আমরা তাদের বলেছি, আপনারা আপনাদের সমস্যা সমাধান করুন, যাতে আমাদের এখানে কোন রক্তারক্তি না হয়।

খুরশেদ আলম বলেন, বাংলাদেশের যত এজেন্সি আছে, তাদের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ রাখছি। সাগর বা অন্য জায়গা দিয়ে কোন রোহিঙ্গা যাতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে, সে বিষয়ে সতর্ক দৃষ্টি রাখার অনুরোধ করেছি।

মর্টার শেল ও গোলাগুলি নিয়ে রাষ্ট্রদূতের একটি বক্তব্য আছে, এগুলো হয়তো আরাকান আর্মির গোলাগুলিতে হতে পারে। আমাদের বক্তব্য হচ্ছে, আপনাদের দেশের ভেতর থেকে যা কিছু আসুক না কেন, সেটা আপনাদের দায়িত্ব।

তিনি আরও বলেন, আমরা পাঁচ বছর ধরে জাতিসংঘসহ এমন কোন বড় দেশ নেই, যাদের কাছে যাইনি, ধরনা দিইনি। সমস্যার সমাধান হয়েছে? কাজেই দ্বিপাক্ষিক ইস্যু সমাধানে সময় লাগবে।

উল্লেখ্য, ঘুমধুম সীমান্তে শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে ব্যাপক গোলাগুলি চলে। রাতে একটি মর্টার শেল তুমব্রু সীমান্তে পড়ে এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত ও শিশুসহ পাঁচজন আহত হন।

আরও খবর

Contact Us