টঙ্গীতে কিশোর গ্যাংয়ের গডফাদার বাপ্পীসহ ১২ সদস্য গ্রেফতার

আলোকিত প্রতিবেদক : গাজীপুরের টঙ্গীতে কিশোর গ্যাংয়ের ১২ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

তাদের নেতৃত্বে রয়েছেন চার বছর আগে র‌্যাবের হাতে অস্ত্রসহ গ্রেফতার হয়ে জামিনে বেরিয়ে আসা রাজিব চৌধুরী ওরফে বাপ্পী (৩৫)।

লন্ডনে লেখাপড়া করা এই গডফাদার থাকেন টঙ্গীর আরিচপুর এলাকায়। তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী।

তিনি টঙ্গীতে পাঁচ বছর আগে ‘ডিয়ারিং কোম্পানি’ নামে কিশোর গ্যাং গ্রুপ গড়ে তুলেন। এর সদস্য বর্তমানে ৫০ জন।

তারা চাঁদাবাজি, ছিনতাই, ডাকাতি ও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। তাদের ভয়ে মানুষ মুখ খুলত না।

রবিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের পরিচালক (মিডিয়া) খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানান।

কিশোর গ্যাংরা গত ১ জুন আরিচপুর এলাকায় ফুচকার দোকানে বসে থাকা তুহিন ও তুষারকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

এ ঘটনায় তুহিন টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি মামলা করেন। মামলার পরদিন এক দর্জির দোকানে হামলা চালিয়ে আরজু মিয়াসহ তিনজনকে কুপিয়ে জখম ও ভাঙচুর করা হয়।

ঘটনাটি ফেসবুকসহ মিডিয়ায় আসলে র‌্যাব নজরদারি শুরু করে। পরে শনিবার অভিযান চালিয়ে বাপ্পীসহ ১২ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

তারা হলেন মইন আহমেদ নীরব ওরফে ডন নীরব, তানভীর হোসেন ওরফে ব্যাটারি তানভীর, ছোট পারভেজ, তারকাঁটা তুহিন, রাজিব আহমেদ নীরব, সাইফুল ইসলাম শাওন, রবিউল হাসান, বাঘা শাকিল, বিস্কুট ইয়াছিন, মাহফুজুর রহমান ফাহিম ও ইয়াছিন মিয়া।

র‌্যাব কর্মকর্তা আরও বলেন, কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা এলাকায় নিজেদের অস্তিত্ব জাহির করার জন্য উচ্চ শব্দে গান বাজিয়ে দল বেঁধে ঘুরে বেড়ায়। বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালায়।

বর্তমানে সারা দেশে তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। যেসব ব্যক্তি কিশোর গ্যাংকে প্রশ্রয় দেবে এবং যারা সদস্য হবে, তাদের প্রত্যেককে আটক করে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

Share
আরও খবর