খালেদা ও গয়েশ্বরের বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক : মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা ও বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

ঢাকা মহানগর হাকিম আমিনুল হকের আদালতে মঙ্গলবার জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী ওই মামলা করেন।

মামলায় ১০০ কোটি টাকার মানহানির অভিযোগ আনা হয়েছে।

আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীতে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল আয়োজিত আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেন, আজকে বলা হয় এত লক্ষ শহীদ হয়েছে, এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে।

খালেদা জিয়া আরও বলেন, তিনি (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান) বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাননি। তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা না দিলে মুক্তিযুদ্ধ হত না।

আর গত ২৫ ডিসেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, একাত্তরের ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত যারা পাকিস্তানের বেতন-ভাতা খেয়েছে তারা নির্বোধের মত মারা গেল। আর আমাদের মত নির্বোধেরা শহীদ বুদ্ধিজীবী হিসেবে ফুল দিই। আবার না গেলে পাপ হয়।

গয়েশ্বর বলেন, নেতৃত্বের অজ্ঞতা ও আগাম সতর্কতার অভাবে ২৫ মার্চ যারা মারা গেছেন তারা না জানার কারণে মারা গেছেন। কিন্তু ১৪ ডিসেম্বর যারা মারা গেছেন তারা অজ্ঞতার কারণে মারা যাননি।

তিনি আরও বলেন, যারা পাকিস্তানের বেতন খাইল তারা হয়ে গেল মুক্তিযোদ্ধা। আর যারা না খেয়ে পালিয়ে বেড়াল তারা হয়ে গেল রাজাকার। এই বিষয়গুলো পরিষ্কার করা দরকার।

আরও খবর

Contact Us