কাপাসিয়ায় ‘ওসির অপসারণ’ দাবিতে ইউনিয়ন আ.লীগের কর্মকান্ড স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : গাজীপুরের কাপাসিয়া থানার ওসি আহসান উল্লাহর বিরুদ্ধে ঘুষ-দুর্নীতির ব্যাপক অভিযোগ রয়েছে।

তার বাণিজ্যের ওপর ইতিপূর্বে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল দৈনিক অন্যদিগন্ত।

তখন ব্যাপক তোলপাড় হয়। তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে-এমন প্রত্যাশা ছিল ভোগান্তির শিকার জনসাধারণের।

অভিযোগ উঠেছে, কাপাসিয়ার সাংসদ সিমিন হোসেন রিমি ওসির বিষয়ে মাথা ঘামান না। দলের দু-চারজনের কান কথায় সব অভিযোগ তার কাছে তুচ্ছ। খোদ যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের দুজন নেতা নিগৃহীত হলেও তিনি নীরব।

উপজেলার টোক ইউনিয়নের কেন্দুয়াব গ্রামে ভূমিদস্যুতা চালাচ্ছে ডায়মন্ড গ্রুপ। তাদেরকে ওসি ও আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতা সহযোগিতা করছেন বলে অভিযোগ।

এ নিয়ে গত ১০ ডিসেম্বর ডাকবাংলোতে বৈঠকে বসেছিলেন সাংসদ।

বৈঠকে টোক ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক টিটু ওসির ভূমিকার প্রতিবাদ করেন।

তখন ওসি ক্ষিপ্ত হয়ে টিটুর কলার চেপে ধরেন। এ ঘটনায় সাংসদসহ অন্যরা বিব্রত হন।

ওই দিন ওসির অপসারণ দাবিতে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা কাপাসিয়া-কিশোরগঞ্জ সড়কও অবরোধ করেন।

এদিকে ওসির অপসারণ দাবিতে টোক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এখনো সোচ্চার।

তারা ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত দলীয় সকল কর্মকান্ড স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

গত ২২ ডিসেম্বর ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। ওই প্রতিবাদের অংশ হিসেবে তা স্থগিত রাখা হয়।

জানতে চাইলে টোক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল হক আকন্দ আলোকিত নিউজ ডটকমকে বলেন, ওসির সহযোগিতায় ডায়মন্ড গ্রুপ মানুষের জমি দখল করছে। আমরা ওসিকে অপসারণ না করা পর্যন্ত দলীয় সকল কর্মকান্ড স্থগিত রাখব।

আরও খবর

Contact Us